ফ্যাক্ট চেক: অন্ধ্রপ্রদেশের ভিডিও হায়দরাবাদের বলে চালানো হচ্ছে

ভুয়ো দাবি নিয়ে ভাইরাল সোশ্যাল মিডিয়া পোস্ট

 |  1-minute read |   02-12-2019
  • Total Shares

২৬ বছর বয়সী পশুচিকিৎসকের ধর্ষণ এবং খুন নিয়ে যখন উত্তাল গোটা দেশ ঠিক তখনই এ সংক্রান্ত খবর নিয়ে ভুয়ো পোস্ট ছড়িয়ে পড়লো সোশ্যাল মিডিয়ায়।

hyderabad-body_120219064242.jpg

পলাশ মন্ডল নামের এক ফেসবুক ব্যবহারকারী একটি ভিডিও পোস্ট করেছেন যেখানে দেখা যাচ্ছে একজনকে পুলিশ লাঠি দিয়ে মারছে। তাঁর দাবি, ''প্রিয়াঙ্কা রেড্ডিকে ধর্ষণ করে পুড়িয়ে মারা এক জানোয়ার 😠ফাঁসি চাই এই জানোয়ারের''এই প্রতিবেদন লেখা পর্যন্ত পোস্টটি শেয়ার হয়েছে প্রায় সাড়ে আট হাজারবার। দেখেছেন ২৫ লক্ষের বেশি।

ইন্ডিয়া টুডে অ্যান্টি ফেক নিউজ ওয়ার রুম (আফওয়া)-এর পাওয়া তথ্য অনুযায়ী এই পোস্টটিতে যে দাবি করা হয়েছে তা বিভ্রান্তিকর।

এখানে পোস্টটির আর্কাইভ দেখতে পারেন।

আফওয়া বিষয়টি নিয়ে খোঁজ-খবর করতে গিয়ে দেখে এই ২ মিনিট ১১ সেকেন্ডের ভিডিওয় যে ঘটনার দাবি করা করেছে ভিডিওটি সেই ঘটনা নয়, অন্য একটি ঘটনার।

আমরা ভিডিওটি কি ফ্রেমে ভেঙে দেখি ঘটনাটি হায়দরাবাদ নয় অন্ধ্র প্রদেশের চিত্তর জেলার। আফওয়া ভিডিওটি রিভার্স সার্চ করতে গিয়ে বেশ কয়েকটি লিঙ্ক পায়। এর মধ্যে হিন্দু পত্রিকায় বেরোনো একটি প্রতিবেদন খুঁজে পাওয়া যায়। সেখানে দেখা যায় ২৪ নভেম্বর একটি ১০ বছরের শিশুকে ধর্ষণ করার অভিযোগে একটি লোককে বেধড়ক মারে গ্রামবাসীরা। তারপর তাকে পুলিশের হাতে তুলে দেয় গ্রামবাসীরা। পুলিশের কাছে ধরা পড়ার পরও আবার পালতে চায় সে। তখন পুলিশ তাকে বেদম মারতে শুরু করে। সেই ভিডিওই ভাইরাল হয়ে যায়। আর এই ভিডিওটিই ভুয়ো দাবি সহ পোস্ট করতে শুরু করে সোশ্যাল মিডিয়া ব্যবহারকারীরা।

ইউটিউবেও এই ঘটনাটির ভিডিও পাওয়া যায়, এনটিভি তেলেগু এই ভিডিও আপলোড করে।

তাই এই ভিডিওটির সঙ্গে সোশ্যাল মিডিয়ায় যে দাবি করা হচ্ছে তা ভুয়ো এবং এটি একটি অন্য ঘটনার ভিডিও।

ফ্যাক্ট চেক: অন্ধ্রপ্রদেশের ভিডিও হায়দরাবাদের বলে চালানো হচ্ছে
Claimপ্রিয়াঙ্কা রেড্ডিকে ধর্ষণ করে পুড়িয়ে মেরেছে এই লোকটি Conclusion ঘটনাটি হায়দরাবাদ নয় অন্ধ্র প্রদেশের চিত্তর জেলার।
JHOOTH BOLE KAUVA KAATE

The number of crows determines the intensity of the lie.

  • 1 Crow: Half True
  • 2 Crows: Mostly lies
  • 3 Crows: Absolutely false
If you have a story that looks suspicious, please share with us at factcheck@intoday.com or send us a message on the WhatsApp number 73 7000 7000

Writer

Ratna
Comment